ঘুর্ণিঝড় আমফানের দাপটে বিপর্যস্ত পশ্চিমবঙ্গের উপকূলবর্তী জেলাগুলি, ভয়ঙ্কর প্রভাব কলকাতাতেও। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়নি এখনও অনেক জায়গাতেই। এরমধ্যেই ফের হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে।

আমফানের পরবর্তী সময়ে দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রা বাড়বে বলে জানিয়েছিল আলিপুর। তবে তাপমাত্রা কিছুটা বাড়লেও, আংশিক মেঘলা হয়ে রয়েছে কয়েকদিন ধরে কলকাতা-সহ একাধিক জেলার আকাশ। বাতাসে আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি থাকার কারণে মাঝে মাঝে ভ্যাপসা গরমের অনুভূতি হচ্ছে।

বুধবার সকাল থেকেও আবহাওয়ার কোন পরিবর্তন নেই। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, এই মুহূর্তে বেশিরভাগ জায়গায় ১০০ শতাংশ মেঘের আস্তরণ রয়েছে। সূর্যের দেখা মেলেনি। হাওয়া দিলেও তার তীব্রতা খুব একটা বেশি নয়। এদিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি কম ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৯.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ৮৫ শতাংশ। বাতাসে অতিরিক্ত আপেক্ষিক আর্দ্রতা থাকায় কারণে মেঘলা আবহাওয়াতেও একটা গুমোট গরম অনুভূত হচ্ছে।

আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সন্ধেবেলা হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে। তবে বৃষ্টিপাতের তীব্রতা খুব বেশি থাকবে না। এই আবহাওয়া আগামী কয়েক দিন চলবে ।

আইএমডি-র পূর্বাভাসে, এই সপ্তাহে উত্তর-পূর্ব ভারত ও পূর্ব ভারতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এর প্রভাব বাংলাতেও পড়বে বলে মত আবহবিদদের। এর প্রভাবেই আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে এই মুহূর্তে বাংলায় খুব একটা ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই বলেই জানিয়েছে আলিপুর।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *