করোনাভাইরাসের সংক্রমনে জর্জরিত গোটা দুনিয়া । এক কোটির বেশি আক্রান্ত, মৃত্যু হয়েছে সাড়ে পাঁচ লক্ষেরও বেশি মানুষের।

শুধু আমেরিকাতেই ১ লক্ষ ৩৬ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুমিছিল এখনও অব্যাহত। শুধু আমেরিকাই নয়, ব্রিটেন, রাশিয়া, ইতালির মতো শক্তিশালী দেশগুলিও এই ভাইরাসের কাছে অসহায় এখনও পর্যন্ত । এর ভ্যাকসিন বের করে উঠতে পারেননি বিজ্ঞানীরা।  দিনরাত প্রাণপন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন দুনিয়ার তাবড় তাবড় বিজ্ঞানীরা, চলছে ওষুধের খোঁজও। লকডাউন করে, কন্টেনমেন্ট জোন চিহ্নিত করে, কোয়ারানটিনে পাঠিয়ে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গোটাবিশ্ব নিজেদের মতো করে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার চেষ্টা করছে।

এর মধ্যেই বিশ্ববাসীর জন্য আরও একটি দুঃসংবাদ দিল চিন। আর এক রহস্যজনক নিউমোনিয়া মৃত্যু পরোয়ানা নিয়ে হাজির ! এই ভাইরাসের সম্পর্কে এখনও কিছুই জানা যায়নি। তবে, চিনের বিশেষজ্ঞদের দাবি, অজানা এই নিউমোনিয়া কোভিড-১৯ এর থেকে আরও বেশি ভয়ংকর এবং প্রাণঘাতীও।

করোনাভাইরাসের সূত্রপাত চিনের উহান শহরে হলেও নতুন এই নিউমোনিয়ার খোঁজ কিন্তু মিলেছে কাজাখস্তানে। এরই মধ্যে কাজাখস্তানে হাজারের উপর মানুষ এই ‘অজানা নিউমোনিয়া’য় মারা গিয়েছেন। যদিও কাজাখস্তান সরকার এখনও পর্যন্ত এই অজানা নিউমোনিয়া সম্পর্কে কোন ঘোষণা করেনি ।

তবে, বৃহস্পতিবার কাজখস্তানে অবস্থিত চিনা দূতাবাস এই ‘অজানা নিউমোনিয়া’ নিয়ে গোটা দুনিয়াকে সতর্ক করেছে। চিনা দূতাবাসের দাবি অনুযায়ী, করোনাভাইরাসের থেকে বেশি প্রাণঘাতী ‘অজনা নিউমোনিয়া’ গোটা কাজাখস্তানে ছড়িয়ে পড়ছে। মৃত্যুহার করোনাভাইরাসের থেকে অনেকটাই বেশি। কাজাখস্তানে থাকা চিনা নাগরিকদের এই মারণ নিউমোনিয়ার কথা উল্লেখ করে, সতর্ক ও নিরাপদে থাকতে বলা হয়েছে। কাজাখস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রকের নির্দেশে সেখানে এই নিউমোনিয়া ভাইরাস নিয়ে গবেষণা শুরু হলেও তাঁরা এখনও কোন সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেনি।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত এই নতুন নিউমোনিয়ার কারণে কাজাখস্তানে ১,৭৭২ জন মারা গিয়েছেন। এই মৃত্যুগুলি হয়েছে চলতি বছরের প্রথম ছ-মাসে। শুধু জুনেই ৬২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। ২৯ জুন থেকে ৫ জুলাইয়ের মধ্যে ৩২,০০০-এর উপর নিউমোনিয়া আক্রান্তের হদিস পাওয়া গিয়েছে, যার মধ্যে মারা গিয়েছে ৪৫১ জন। মৃতদের মধ্যে একজন চিনা নাগরিকও রয়েছেন। জানা যাচ্ছে, কাজাখস্তানের আটিরাউ, আকটোবে এবং শাইমকেন্ট শহরে জুন মাসের মাঝামাঝি থেকে এই ‘অজানা নিউমোনিয়া’ ছড়াতে শুরু করেছে।

এতগুলো মৃত্যুর পরও কাজখস্তানের সরকারী আধিকারিকরা এটিকে সাধারণ নিউমোনিয়া বলছেন। চিনের উত্তর-পশ্চিমের শিনজিয়াং প্রদেশের সঙ্গে কাজাখাস্তানের সীমান্ত রয়েছে। কিছু চিনা বিশেষজ্ঞ এই নিউমোনিয়া যাতে চিনে ছড়াতে না-পারে, সে জন্যে এখনই ব্যবস্থা নেবার কথা বলছেন।

কাজাখস্তানের সরকারের করোনাভাইরাস মোকাবিলার প্রচেষ্টা নিয়েও উঠেছে সমালোচনার ঝড় । বুধবার, সেখানকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্বীকার করেছেন, কোভিডের থেকেও দুই থেকে তিন গুণ বেশি মানুষ আক্রান্ত এই নতুন নিউমোনিয়ায়। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই প্রকৃত পরিসংখ্যান তাঁরা সামনে আনবেন, সেই মতো প্রস্তুতিও চলছে বলে জানিয়েছেন।

কাজাখস্তানে এ পর্যন্ত ৫০ হাজারেরও বেশি কোভিড-১৯ সংক্রমণ ধরা পড়েছে। সরকারি হিসেবে মারা গিয়েছেন ২৬৪ জন। গত বৃহস্পতিবার সেখানে এক দিনে সর্বোচ্চ ১,৯৬২ জনের সংক্রমণ ধরা পড়ে। কাজাখস্তানে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, জুন মাসে সেখানে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা গত বছরের তুলনায় প্রায় ২.২ শতাংশ বেশি। তথ্যসূত্রঃ এই সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *