পাকিস্তানের জাতীয় বিমানসংস্থা সম্প্রতি তাঁদের প্রায় এক তৃতীয়াংশ পাইলটকে বহিষ্কার করেছে ভুয়ো ফ্লায়িং লাইসেন্স থাকার অপরাধে। এর জেরে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন পাকিস্তানের আন্তর্জাতিক বিমানের উপর আগামী ৬ মাসের জন্যে নিষেধাজ্ঞা জারি করল  ।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন অ্যাভিয়েশন সেফটি এজেন্সির তরফে জানানো হয়েছে, ‘পাকিস্তান সম্প্রতি যে তদন্তের তথ্য জমা দিয়েছে সংসদে তাতেই স্পষ্ট যে পাকিস্তানের জারি করা ফ্লায়িং লাইসেন্সের মধ্যে একটি বড় অংশের কোনও মূল্য নেই। আর ঠিক এই কারণেই পাকিস্তান আন্তর্জাতিক বিমানসংস্থা এবং আরও একটি বেসরকারি পাকিস্তানি বিমানসংস্থার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের তরফে।’

সরকারি এক তদন্তে দেখা গিয়েছে দেশের ৮৬০ জন পাইলটের মধ্যে ২৬২ জনের কাছে রয়েছে ভুয়ো লাইসেন্স অথবা পরীক্ষায় নকল করে পাশ করেছেন। তারই মধ্যে পিআইএ-তে কর্মরত ৪৩৪ জন পাইলটের মধ্যে ১৪১ জনের কাছে রয়েছে জাল লাইসেন্স।

উল্লেক্ষ্য, গত ২২ মে করাচি শহরে বাড়ির উপরেই ভেঙে পড়ে পিআইএ-র একটি বিমান। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ৯৭ জন যাত্রীর। প্রাথমিক তদন্তে জানা যায় কোনও যান্ত্রিক সমস্যা নয়, দুই পাইলট করোনা সংক্রান্ত আলোচনায় মশগুল ছিলেন। তাঁদের এই অসাবধানতার জেরে ঘটে এই দুর্ঘটনা।

এই ঘটনা সামনে আসার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সংসদে জানিয়েছে দ্রুত তিনি পিআইএ সহ আরও বেশ কয়েকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের সংস্কারের কাজে হাত দেবেন। মঙ্গলবার সংসদে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ‘দেশবাসীকে একটাই কথা বলতে চাই। আমাদের কাছে সংস্কার ছাড়া আর কোনও উপায় নেই।’ বিমানমন্ত্রী গুলাম সারওয়ার খান জানিয়েছেন, এই বছরের মধ্যেই পিআইএ-র সংস্কারের কাজ সম্পূর্ণ হয়ে যাবে।

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *