বৃহস্পতিবার ১৬ ই জুলাই, ভারতে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লক্ষ ছাড়িয়ে গেল। পরিসংখ্যান অনুসারে, দেশে মোট সংক্রমিত ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লক্ষ ৫৬৩৭ জন। একইসঙ্গে মৃতের সংখ্যা ২৫ হাজার ৬০৯। গত ৩০ জানুয়ারি দেশের মধ্যে প্রথম কেরালায়  করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া যায়।

বর্তমানে ভারতের মধ্যে মহারাষ্ট্রে, সর্বাধিক আক্রান্তের ঘটনা ঘটেছে। এই রাজ্যে এদিন নতুন করে আরও ৮ হাজার ৬৪১ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই রাজ্যে মৃত্যুর ঘটনাও সর্বোচ্চ। পরিসংখ্যান অনুসারে, মহারাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত এই মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন ১১ হাজার ১৯৪ জন।

আক্রান্তের সংখ্য়ার নিরিখে মহারাষ্ট্রের পরেই রয়েছে তামিলনাড়ু। দক্ষিণের এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ লক্ষ ৫৬ হাজার ৩৬৯ জন। রাজ্যগুলির মধ্যে তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি। কমপক্ষে ১ লক্ষ ১৮ হাজার ৬৪৫ জন কোভিডে সংক্রমিত হয়েছেন সেখানে। কর্নাটক-ও সংক্রমণের নয়া রেকর্ড সৃষ্টি করেছে । এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে। একদিনে সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ হাজার ১৬৯ জন।

ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব সায়েন্সের সাম্প্রতিক একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে, ১ লা সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভারতে করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন ৩৫ লক্ষ মানুষ ! শুধু তাই নয়, করোনার সংক্রমণের সাথে মৃত্যুমিছিলও হবে দীর্ঘ। তাঁরা জানিয়েছে, সেপ্টেম্বরের মধ্যেই দেশে মৃত্যু হতে পারে ১ লক্ষ ৪০ হাজার মানুষের। তবে, দেশে যদি করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর ক্ষেত্রে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া যায়, তাহলে হয়ত কিছুটা কমতে পারে মৃত্যু সংখ্যা। খুব ভালোভাবে সংক্রমণ রোখার চেষ্টা করা হলেও সেপ্টেম্বরের মধ্যে আক্রান্ত হতে পারেন প্রায় ২০ লক্ষ মানুষ ! খুব কম করে হলেও মৃত্যু হতে পারে দেশের ৮৮ হাজার বাসিন্দার, বলে তাঁদের আশঙ্কা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *