নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি বুধবার বুকে যন্ত্রণা অনুভব করায় তাঁকে কাঠমান্ডুর এক হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। কাঠমান্ডুর সাহিদ গঙ্গালাল ন্যাশনাল হার্ট সেন্টারে ভর্তি র‍্যেছেন তিনি । এক ট্যুইট বার্তায় প্রধানমন্ত্রীর মিডিয়া উপদেষ্টা সূর্য থাপা জানিয়েছেন, নিয়মিত স্বাস্থ্য পরীক্ষার কারণেই প্রধানমন্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

শুধু বিরোধীরা নন, শাসকদলের অন্দরেও এখন অলি-বিরোধী হাওয়া। নেপালে তাঁর পদত্যাগের দাবি ক্রমশই তীব্র হচ্ছে । দলের অনেক প্রবীণ নেতারাই অলিকে প্রধানমন্ত্রী পদে আর দেখতে চাইছেন না। ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি এবং চিনের সঙ্গে মাখামাখির ফলে অনেকেই তাঁকে ভালো চোখে দেখছেন না। শুধু প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে নয়, অলিকে পার্টির প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার কথাও উঠেছে। স্বাভাবিক কারণেই চাপে রয়েছেন অলি। সংগঠনের বরিষ্ঠ নেতার প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে তাঁর ইস্তফা দাবি করেন। নেপালের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অলি ব্যর্থ বলে তাঁরা মনে করেন।

অলি নয়াদিল্লির বিরুদ্ধে সরাসরি তোপ দেগে বলেন, তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ভারত ষড়যন্ত্র করছে। নয়াদিল্লি অবশ্য তাঁর এই বক্তব্য নিয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি। নিজের গদি শক্তপোক্ত করতে জাতীয়াতাবাদের হুজুক তুলে ইদানীং কিছু ভারত-বিরোধী পদক্ষেপ করেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী। সেই পদক্ষেপের ফলেই এখন তাঁর গদি নড়বড়ে হয়ে পড়েছে। ভারতের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুললেও নেপালের বিরোধী দল এবং শাসকদলও মনে করছে নিজের ব্যর্থতা ঢাকতেই ভারতের দিকে আঙুল তুলছেন অলি।

নেপালের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী অলি বেশ কিছু দিন ধরেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। গত মার্চে তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন হয়। এই জুন মাসের শেষের দিকে হার্ট রেট অস্বাভাবিক বেড়ে যাওয়ার কারণে অলিকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয়েছে । প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিত্‍‌সক জানিয়েছেন অলিকে মনমোহন কার্ডিয়োথোরাসিক ভ্যাসকুলার অ্যান্ড ট্রান্সপ্ল্যান্ড সেন্টারে পর্যবেক্ষণে রাখতে হবে। তাঁর চিকিত্‍‌সকরা জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই। তাঁর শারীরিক অবস্থা স্বাভাবিক।

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *