করোনা ভাইরাস লকডাউনের মধ্যেই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আবারও শোকের ছায়া। বৃহস্পতিবার ৪ই জুন, বিখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা বসু চ্যাটার্জি মারা গেলেন। ভারতীয় চলচ্চিত্র ও টিভি পরিচালক সমিতির সভাপতি অশোক পণ্ডিত, বসু চ্যাটার্জি -র মৃত্যু সংবাদ টুইট করে জানিয়েছেন। বসু চ্যাটার্জীকে আজ সান্তা ক্রূজের শ্মশানে সমাধিস্থ করা হবে।

ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে বসু চ্যাটার্জীকে ভালবেসে বসু দা বলা হত। ফিল্ম প্রযোজক অশোক পণ্ডিত বাসু চ্যাটার্জির মৃত্যুতে টুইট করেছেন। তাঁর মৃত্যুতে চলচ্চিত্র জগতে আবার শোকের ছায়া। মধ্যবিত্ত পরিবারের রসায়ন এবং হালকা ছোঁয়া রোমান্টিক কমেডি ছায়াছবি, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে একটি আলাদা পরিচয় এনে দিয়েছে বসু চ্যাটার্জীকে।

১০ই জানুয়ারী ১৯২৭ রাজস্থানের আজমের শহরে, বসু চ্যাটার্জী জন্মগ্রহণ করেছিলেন। ১৯৯২ সালে দুর্গার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার এবং ২০০৭ সালে, আইআইএফএ দ্বারা তিনি লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরষ্কারে ভূষিত হন। বসু দা ১৯৬৯ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত চলচ্চিত্র পরিচালনা করেছেন।

‘ছোটি সি বাত’ ও ‘রজনীগন্ধা’র মতো চলচ্চিত্রের জন্য পরিচিত প্রবীণ চলচ্চিত্র পরিচালক বসু চ্যাটার্জী বৃহস্পতিবার বার্ধক্য জনিত অসুস্থতার কারণে মারা গেছেন।  তাঁর মৃত্যুতে বলিউড থেকে প্রতিক্রিয়া  আসতে শুরু করেছে। অমিতাভ বচ্চন টুইটে  বসু চ্যাটার্জি পরিচালিত ‘মনজিল’ ছবিটির স্মৃতি উল্লেখ করেছেন। আরও বলেছেন, বর্তমান পরিবেশে আমি প্রায়ই ‘রিম ঝিমকে গিরে সাওয়ান’-কে মিস করি …

ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ডিরেক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের (আইএফডিটিএ) সভাপতি অশোক পণ্ডিত বলেছেন যে বসু চ্যাটার্জী সকালে ঘুমন্ত অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছিলেন। বার্ধক্য জনিত সমস্যার কারণে তাঁর শরীর কিছুদিন ধরেই ভাল যাচ্ছিল না, এদিন সকালে নিজের বাড়িতেই তাঁর মৃত্যু হয়।  তাঁর মৃত্যু চলচ্চিত্র জগতের জন্য একটি বিশাল ক্ষতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *