সৌন্দর্য ও মেক-আপের ক্ষেত্রে ফ্রান্সের লরিয়্যাল খুবই জনপ্রিয় একটি কোম্পানি। লরিয়্যাল এবার তাদের সমস্ত স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট থেকে ‘ফেয়ার’, ‘হোয়াইট’, ‘লাইট’ শব্দগুলি সরিয়ে দিতে চলেছে। হিন্দুস্থান ইউনিলিভার কোম্পানির পদক্ষেপের পরই শুক্রবার লোরিয়্যাল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং ঘোষণা করেছে। তাদের লোরিয়্যাল প্যারিস, মেবলিন নিউ ইয়র্ক এবং এনওয়াইএক্স প্রফেশনাল মেক আপের জিনিসের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে গোটা বিশ্বে।

সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘লরিয়্যাল’ তাঁদের স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টে ব্যবহৃত শব্দগুলি নিয়ে সচেতন। এবার থেকে কোনও প্রোডাক্টেই ‘ফেয়ার’, ‘হোয়াইট’, ‘লাইট’ এমন শব্দগুলি ব্যবহার করবে না তাঁরা।’

বৃহস্পতিবারই হিন্দুস্তান ইউনিলিভার, বর্ণবিদ্বেষ নিয়ে বিশ্বজোড়া আন্দোলনের মধ্যে তাঁদের এই পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেছে। তাঁরা ঘোষণা করেছে, জনপ্রিয় ব্র্যান্ড ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি’ থেকে ‘ফেয়ার’ শব্দটা বাদ দেওয়া হবে। এর আগেই অপর এক বহুজাতিক সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, ভারত সহ এশিয়ার দেশগুলিতে তাঁরা আর তথাকথিত ফর্সা হওয়ার ক্রিম বিক্রি করবে না। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের অত্যাচারে কৃষ্ণাঙ্গ ব্যক্তি জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর ত্বক উজ্জ্বল করার ক্রিম বিক্রি বন্ধ করা নিয়ে ইউনিলিভার সংস্থার উপর চাপ তৈরির পরই ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি-র বিষয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের তরফে আনুষ্ঠানিক ভাবে বলা হয়েছে, ‘কোম্পানির স্কিনকেয়ার পোর্টফোলিও বা ত্বকের যত্নে ব্যবহৃত প্রসাধন পণ্য সব রঙের স্কিন টোনের জন্য এবং সৌন্দর্যের প্রতিটি বৈচিত্রই অনন্য। এরই ধারাবাহিকতায় কোম্পানির ফ্ল্যাগশিপ ব্র্যান্ড ফেয়ার অ্যান্ড লাভলির নাম পরিবর্তন করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।’ জানা গিয়েছে ফেয়ার অ্যান্ড লাভলির নামে পাল্টে- ‘কেয়ার অ্যান্ড লাভলি, ফ্রেস অ্যান্ড লাভলি অথবা ডিয়ার অ্যান্ড লাভলি-এই নামগুলির মধ্যে থেকে একটিকে বেছে নেওয়া হতে পারে, তবে এখনও চূড়ান্ত কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। ইউনিলিভারের পর একই পথে হাঁটল এবার লরিয়্যাল সংস্থা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, সারা বিশ্বেই রঙ ফর্সা করার ক্রিমের চাহিদা প্রচুর, তবে দক্ষিন এশিয়ায় দেশগুলিতে এগুলির ব্যবহার সবচেয়ে বেশি। চিন, ভারতসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশগুলির প্রায় ৪০ শতাংশ নারী এই ধরনের তথাকথিত ‘ফেয়ারনেস ক্রিম’ ব্যবহার করেন।

আরও পড়ুন – করোনা মহামারীর জেরে লোকসান, ভারতে কর্মী ছাঁটাইয়ের পথে টাটা গোষ্ঠী

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *