ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণে লেবাননের রাজধানী বেইরুটে দুই সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করল সরকার।

মঙ্গলবার ভারতীয় সময় রাত ৯টা নাগাদ বেইরুট বন্দরের একটি গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। ওই গুদামে প্রচুর পরিমাণ রাসায়নিক মজুদ ছিল। তা থেকেই বিস্ফোরণ। মঙ্গলবার গভীর রাতেই লেবাননের প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, অ্যামনিয়াম নাইট্রেট থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছে। বুধবার পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। আহতের সংখ্যা চার হাজারের কাছাকাছি। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিস্ফোরণে প্রায় ৩ লক্ষ মানুষ গৃহহীন হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত অসংখ্য ঘরবাড়ি। আগুন নেভাতে গিয়ে দমকল বিভাগের ১০ কর্মীও মারা গিয়েছেন। বিস্ফোরণে ক্ষতির পরিমাণ ৩০০ থেকে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার আন্দাজ করা হচ্ছে।

বিস্ফোরণের পর লেবাননের সর্বোচ্চ প্রতিরক্ষা পরিষদ প্রেসিডেন্ট মিশেল আউনের নেতৃত্বে জরুরি বৈঠকে বসে। বৈঠক শেষে প্রেসিডেন্ট জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন। ক্ষতিগ্রস্ত বেইরুটবাসীর জন্য ১০ হাজার কোটি লেবাননি পাউন্ড সাহায্য ঘোষণা করা হয়।

লেবাননের সর্বোচ্চ প্রতিরক্ষা পরিষদ একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। এই কমিটিকে পাঁচ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট পেশ করতে বলা হয়। তদন্তে দোষী সাব্যস্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।

বেইরুটের ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণ এখনও স্পষ্ট নয়। তবে লেবাননের জাতীয় নিরাপত্তা প্রধান আব্বাস ইব্রাহিম জানিয়েছেন, এটি রাসায়নিক বিস্ফোরণ। এসব উপাদান ভর্তি জাহাজ কয়েক বছর আগে আটক করা হয়েছিল। লেবাননের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিরাপত্তা প্রধানের বক্তব্যে সমর্থন করে বলেছেন, অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট ভর্তি জাহাজটি ২০১৪ সালে আটক করা হয়।

বিস্ফোরণটি ইচ্ছাকৃত ছিল কি না, তা লেবাননের কর্তারা না জানালেও লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন বলেছিলেন, ঘটনার পিছনে যারা রয়েছে, তাদের বিচার হবে। গার্ডিয়ানের খবর অনুযায়ী, ভয়াবহ বিস্ফোরণে শতাধিক নিহত এবং চার হাজারের বেশি লোক আহত হয়েছেন।

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *