কফি খেতে খুব ভালোবাসেন? সকালে উঠেই এক কাপ কফি না পেলে কি মন আনচান করে?  কিন্তু বার বার কফি খাওয়াও শরীরে পক্ষে ভালো না । তবে দিনে মোটামুটি পাঁচ কাপ পর্যন্ত কফি আপনি খেতেই পারেন বলে বিজ্ঞানীরা আশ্বাস দিচ্ছেন।

জেনে নিন, ঠিক কত পরিমান কফি খাওয়া উচিৎ

American Journal of Clinical Nutritionএর একটা গবেষণার রিপোর্টে বলা হচ্ছে, দিনে ৬ কাপের বেশি কফি কার্ডিও ভাসকুলার ডিজ়িস এর কারন হতে পারে, তবে ১ থেকে ২ কাপ খেলে সমস্যার সম্ভাবনা অনেকটাই কম। যদিও সবার মেটাবলিক রেট এক নয়। তবুও এই বিষয়টি সব সময় মাথায় রেখেই এই কফির কাপে চুমুক দিতে হবে।  কখনওই ৫ কাপের বেশি কফি নয় সারাদিনে, আবার ১ থেকে ২ কাপ খেলে তো কোনও সমস্যাই নেই।  টেনেটুনে পাঁচ কাপ। 

কফিতে থাকা উপাদান ও তাঁর গুনাবলী

ক্যাফিন (Caffeine) এই উপাদান টি কফিতে খুব বেশি পরিমাণে পাওয়া যায়। আর এই ক্যাফিনে থাকে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্টই আপনার ব্যথা কমায়, যে কোনও রকম জ্বালা কমাতে সাহায্য করে, হার্টফেলের সম্ভাবনা অনেকটাই কমায়। সুগার নিযন্ত্রণে সাহায্য করে।এমনকি কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যাতেও উপকারী।

এই গবেষণায়, খুব বেশিবার কফি কেন ভালো নয়, তার ব্যাখ্যাও দেওয়া হয়েছে । দিনে ৬ কাপের বেশি কফি হয়ে গেলে কার্ডিওভাসকুলার সমস্যা কিন্তু বেশ কিছুটা বাড়তে পারে।  কারও কারও যেমন কফি খেলে ঘুম আসে, তেমনই আবার কফি খেলে অনেকের ঘুম আসতে চায় না, কারণ কফির ক্যাফিন তাঁদের ক্ষেত্রে নার্ভকে অস্থির করে দেয়, অ্যাংজ়াইটি বাড়িয়ে দেয়, বমি বমি ভাব হয়, গলা শুকিয়ে আসে।  তাই নিজের শরীর বুঝে অবশ্যই কফি খান, দিনে ৫ কাপের বেশি কফি কখনও নয়। 

আরও পড়ুন – সতর্ক থাকুন এমন কতগুলি খাবার সম্পর্কে, না জানলে আপনার বিপদও ঘটাতে পারে

আরও পড়ুন – মাংসের থেকেও বেশি খাদ্যগুণ পাওয়া যায় এই নিরামিষ খাবারগুলিতে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *