গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের তরফ থেকে জেসি কুম্বসকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম মহিলা কার রেসার হিসেবে সম্মান প্রদান করা হল। উল্লেখ্য গতির রেকর্ড ভাঙতে গিয়েই ২০১৯ সালের ২৭ অগস্ট মৃত্যু হয়েছিল তাঁর।

এই গতিই প্রাণ কেড়ে নিয়েছিল তাঁর। তবে সেই গতির জন্যই মরণোত্তর সম্মান পেলেন তিনি। ২০১৯ সালের ২৭ অগস্ট আলভোরড মরুভূমিতে রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। তাঁর গাড়িতে স্পিড ছিল ৫২২.৭৮৩ মাইল প্রতি ঘণ্টা। ৪০ বছরেরও বেশি সময় পর এমন রেকর্ড গড়তে পেরেছিলেন জেসি। তাঁর আগে  ১৯৭৬ সালে করা এই রেকর্ডের মালকিন ছিলেন কিটি ও’নীল। তাঁর স্পিড ছিল ৫১২.৭ মাইল প্রতি ঘণ্টা।

অরিগনের ইভেন্টেই রেকর্ড গড়তে গিয়ে মৃত্যু হয়েছিল জেসির। এর আগে ২০১৩ সালে ৩৯৮ মাইল প্রতি ঘণ্টায় গাড়ি চালিয়ে রেকর্ড তৈরি করেছিলেন তিনি । অরিগনে এদিন জেসি চালাচ্ছিলেন নর্থ আমেরিকান ইগল সুপারসনিক স্পিড চ্যালেঞ্জার দলের হয়ে। এই ইভেন্টেই সবচেয়ে দ্রুততম মহিলার রেকর্ড করেন তিনি। রেকর্ড গড়তে গিয়ে রেসিং ট্র্যাকে মৃত্যুবরণ করেছিলেন মার্কিন কার রেসার ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব জেসি কুম্বস । মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৩৯ বছর। রেসিং ট্র্যাকেই গতির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিলেন  কিটি ও নীলের রেকর্ড ভাঙতে চেয়েছিলেন জেসি, যা তিনি পেরেছিলেনও। হতে চেয়েছিলেন বিশ্বের দ্রুততম মহিলা । কিন্তু শেষ পর্যন্ত এই গতিই তাঁর প্রান নিল, চিরতরে চলে গেলেন তিনি।

তাঁর দলের সদস্যরা জানিয়েছিলেন, শুধু রেকর্ড করাতেই সন্তুষ্ট ছিলেন না, রেকর্ড ভাঙতেও খুবই ভালোবাসতেন জেসি। তাঁর মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছিলেন তাঁর দলের সদস্যরাও। মর্মান্তির দুর্ঘটনার পর অনেক চেষ্টা করেও জেসিকে বাঁচানো সম্ভব হয়নি। চোট এতটাই ভয়াবহ ছিল যে শেষে মৃত্যুর কাছে হার মেনে নিতে হয়েছিল বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুততম মহিলা রেসারকে।

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

ছবিসুত্র – মোটর স্পোর্টস

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *