জাতির উদ্দেশে ভাষণ দিতে গিয়ে মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন, এই বছরের নভেম্বর পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ প্রকল্প-এ দেশের ৮০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হবে। তাতে পরিবারে সদস্য পিছু ৫ কেজি চাল বা গম ও প্রতি মাসে ১ কেজি করে ছোলা দেওয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পরই নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, ‘কেন্দ্র নভেম্বর পর্যন্ত দিক, আমরা আগামী বছর অর্থাৎ ২০২১ সালের জুন মাস পর্যন্ত রেশন দেব বিনামূল্যে ।’

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, ‘কেন্দ্রীয় সরকার নভেম্বর পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশনের সময়সীমা বাড়িয়েছেন। আমি তা আগামী বছরের জুন মাস পর্যন্ত বাড়িয়ে দিলাম। ফ্রি রেশন।’ একইসঙ্গে রাজ্যের প্রশাসক হিসেবে তিনি সকল রাজ্যবাসীর মুখে খাবার তুলে দেবার যে আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছেন, তাও এদিন জানান মুখ্যমন্ত্রী। সেইসঙ্গে কেন্দ্রের কাছে রাজ্যের সকলকে রেশন দেওয়ার আর্জিও জানান তিনি।

কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এদিন রেশন নিয়ে একগুচ্ছ অভিযোগও জানান মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘কেন্দ্র ( এফসিআই ) যে চাল মানুষকে দেন, তার গুণগত মান অত্যন্ত খারাপ। আমরা যেটা দিই, সেটা অনেক ভালো। কারণ আমরা সরাসরি চাষিদের থেকে চাল নিই। ওনারা নভেম্বর পর্যন্ত বাড়িয়েছেন। আমি ওটা বাড়িয়ে জুন মাস পর্যন্ত করে দিচ্ছি।’

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রুখতে লকডাউন মেনে চলার বিষয়েও এ দিন রাজ্যবাসীকে আহ্বান জানান মুখ্যমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, ‘লকডাউন মানা হচ্ছে কি না তা দেখতে হবে ৷ পুলিশকে নজরদারি বাড়াতে হবে ৷ সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রাতঃভ্রমণ করা যাবে সকাল সাড়ে ৫টা থেকে সাড়ে ৮ টা পর্যন্ত৷ বিয়ে বাড়ি, শ্রাদ্ধানুষ্ঠানে ৫০ জন পর্যন্ত জমায়েত হতে পারে ৷ সবাইকে মাস্ক ও গ্লাভস পরতে হবে ৷’

কেন্দ্রের রেশন দেওয়ার ধারাবাহিকতা নিয়েও অভিযোগ তুলেছেন এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্র আজ দেবে, কাল দেবে না কিন্তু আমরা টানা আগামী বছরের জুন মাস পর্যন্ত এটা চালিয়ে যাব। যাতে মানুষ খেয়ে বাঁচতে পারে। তাঁর কথায়, ‘কেন্দ্রের ১০০ শতাংশ চাল মানুষ পাচ্ছে বলে যে দাবি করেছে, তা সম্পূর্ণ ভুল। পশ্চিমবঙ্গের ৬০ শতাংশ মানুষ পাচ্ছে, কিন্তু ৪০ শতাংশ মানুষ তা পাচ্ছে না।’

প্রধানমন্ত্রী উৎসবের উপহার হিসেবে ঘোষণা করেছেন, ‘সামনের কয়েকমাসে বেশ কয়েকটি উত্‍‌সব আসছে। সে কথা মাথায় রেখে ৮০ কোটি মানুষকে প্রতি মাসে বিনামূল্যে পাঁচ কেজি রেশন ও এক কেজি ডাল দেওয়ার প্রকল্প দীপাবলি ও ছট পুজো পর্যন্ত অর্থাত্‍‌ নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত বাড়ানো হল।’ অবশ্য দেশের ১৩০ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার দাবি তুলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

তথ্যসূত্রঃ এই সময়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *