নিত্য নতুন রেকর্ড, দেশে এক দিনে করোনা সংক্রমিত প্রায় ১০ হাজার। পরপর টানা পাঁচ দিন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৯,৯৭১ জন এবং মৃত ২৮৭ জন। আজ থেকে কন্টেনমেন্ট জ়োনের বাইরে হোটেল-রেস্তরাঁ, শপিং মল, ধর্মস্থান, অফিস  খোলার অনুমতি মিলেছে।  লকডাউন সফল হলেও তাতে করোনার সংক্রমণ কমেনি এতটুকু। তিনি বলেন, লকডাউনের গুরুত্ব মানুষের মেনে চলা উচিত ছিল,  কিন্তু তাঁরা সেটা করেননি। এই সময়েই দায়িত্বশীল হওয়া উচিত, কারণ অর্থনীতির পাশাপাশি গরিবদেরও খেয়াল রাখতে হবে। সরকারের বক্তব্য অনুযায়ী, সঠিক সময়েই লকডাউন হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কৌশলগত পরিবর্তন করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হয়নি, এই অভিযোগও মানতে নারাজ কেন্দ্র।

পরিসংখ্যান হিসাবে দেশে সংক্রমণ এখনও শীর্ষ স্থানে পৌঁছায়নি। তবে যে কোন সময়েই তা হতে পারে। ভারতে জনসংখ্যার নিরিখে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলাটা প্রত্যাশিত। যদিও অন্যান্য দেশগুলির থেকে ভারতে মৃত্যু-হার কম। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, দেশে প্রতি লক্ষে মৃত্যুর হার ০.৪৯, বিশ্বে ওই হার ৫.১৭। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার রিপোর্ট অনুযায়ী, যে সমস্ত দেশ লকডাউন তুলেছে, তাদের মধ্যে ভারতেই মৃত্যু-হার সর্বনিম্ন। দেশে সুস্থতার হার ৪৮.৩৭ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত ৪৬.৬৬ লক্ষেরও বেশি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। করোনা পরীক্ষায় দেশের ৭৫৯টি ল্যাব সক্রিয় ভুমিকা পালন করে চলেছে।

পিআইবি-র প্রিন্সিপাল ডিজি কে এস ধাতওয়ালিয়ার করোনার উপসর্গ দেখা দেওয়ায়, তাঁকে এইমসে ভর্তি করা হয়েছিল। পরীক্ষায় করোনা পজ়িটিভ এসেছে। গত বুধবারই কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তিনি। ফলে চিন্তা বেড়েছে দিল্লিতে। অন্যদিকে, করোনা ধরা পড়েছে দিল্লির রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরে কর্মরত এক আইএএসের।
চেন্নাই থেকে আগরতলায় আসা ট্রেনের ৫৩ জন যাত্রীর শরীরে করোনা পাওয়া গিয়েছে। অসমে আক্রান্তের সংখ্যা ২৫৬৫। রাজ্যগুলির উপরে নজরদারি চালাতে যে অ্যাপ এনেছে কেন্দ্রীয় সরকার তাতে অ্যালার্ট এলেই নিজের ছবি পাঠাতে হবে রোগীদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *