আম লিচুর সাথে সাথে তরমুজ, আনারস প্রভৃতি ফল শুধু মাত্র গ্রীষ্মকালেই পাওয়া যায়। শরীর ও পেট ঠাণ্ডা রাখতে এই সব ফলের জুরি মেলা ভার। শরীরে জলের সাম্যতা বজায় রাখতে এবং গরমে থেকে বাঁচতে অবশ্যই বেশি করে খাওয়া দরকার এই সব ফল।

কর্মব্যস্ত জীবনে আজকাল প্রয়োজনের খাতিরে সবাই বাইরের খাবারই বেশী খেয়ে থাকেন। প্রতিদিন এই সব খাবার খাওয়া শরীরের পক্ষে ভালো না। কিন্তু শরীর তো ভালো রাখতেই হবে। তাই প্রতিদিন কিছু পরিমাণে হলেও ফল খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা উচিৎ।

তরমুজ শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী, বিশেষত এই গরমে। তরমুজে যে পটাশিয়াম থাকে তা মানব দেহে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে এবং হৃদপিন্ডের সুস্থতা রক্ষা করে।

আরও পড়ুন – খেজুর: শরীরের রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা বাড়ায়

আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জানাচ্ছে, মনো এবং পলি আনস্যাচুরেটেড ফ্যাট রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। প্রচুর জল থাকার কারণে শরীরের জল এর চাহিদা পুরন করে তরমুজ। তরমুজের বীজ স্নায়ু এবং পরিপাক তন্ত্রের ক্ষমতা বাড়ায়।

আজকালকার দিনে ছোটো  শিশুরাও বাইরের বিভিন্ন রকম মুখরোচক খাবারের প্রতি বেশি আগ্রহী  হয়ে পড়ছে এবং তারা প্রতিদিনই সেসব খাবার খেতে চায়। কিন্তু, রোজ এসব খাবার শরীরের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক। সেদিকে নজর দিয়ে তাদের খাদ্য অভ্যাসের পরিবর্তন করা দরকার।

আরও পড়ুন – স্ট্রোকের বিপদ কমাতে রোজ ফলের রস খান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *