সকলে এই চায়ের সঙ্গে অতটাও পরিচিত নয় যতটা গ্রিন টি-এর সাথে। জেনে রাখুন এই চায়ের রয়েছে প্রচুর স্বাস্থ্যগুণ এবং এর বিশেষত্ব হল স্বাদ। স্বাদ আর গন্ধেই আপনার মন ভরে যাবে। এই চা গ্রিন টিয়ের থেকেও বেশি উপকারী

 

চা প্রেমীরা ছাড়া এই আর্ল গ্রে নামের সঙ্গে কেউই খুব একটা পরিচিত নন। ব্রিটিশ মুখ্যমন্ত্রী আর্ল চার্সল গ্রে -এর নাম অনুসারে ১৮৩০ সালে এই চায়ের নামকরণ হয়। এই চায়ের উৎপত্তি এবং ইতিহাস নিয়ে বিতর্ক থাকলেও স্বাদে গন্ধে এই চা অতুলনীয়। জানা যায় এই চা নাকি চিনারা তাঁদের ভগবানের উদ্দেশ্যে নিবেদন করতেন। অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে ভরপুর এই চায়ের অনেক গুণ রয়েছে। যেমন

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়- এই চা এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। মেটাবলিজম রেট ঠিক রাখে। স্ট্রেস কমায়। এছাড়াও জ্বর বা সংক্রামক ব্যাধির সঙ্গে লড়তে সাহায্য করে এবং ভেতর থেকে শরীরকে সুস্থ রাখে।

হার্টের সুরক্ষা- হার্টের সমস্যা যাঁদের রয়েছে তাঁরা নিয়মিত এই চা পান করলে কোলেস্টেরলের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। দেহে জমা অবাঞ্ছিত কোলেস্টেরল, এই চা খেলে কমবে এবং রক্ত সঞ্চালনও ভালো হবে।

এনার্জি বাড়ায়- আপনি কি চিনি ছাড়া কালো কফি পছন্দ করেন? তার বদলে খান এই আর্ল গ্রে চা। এই চা যেমন আপনার এনার্জি বাড়াবে তেমনই শরীরে জলের পরিমাণ ঠিক রাখবে। এছাড়াও এতে আছে গুরুত্বপূর্ণ খনিজ, ভিটামিন। এক কাপ কফির থেকে এককাপ এই চা আপনাকে অনেক বেশি শক্তি দেবে।

হজমের সমস্যায়- গ্যাস, অম্বলের সমস্যায় প্রতিদিন সকালে চিনি ও দুধ ছাড়া এই চা খেলে হজম শক্তি বাড়বে। অম্বলের সমস্যা এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমবে।

দাঁতের সুরক্ষা- আর্ল গ্রে চায়ে রয়েছে এমন কিছু উপাদান, যা মুখের যে কোনও সংক্রমণ এবং ক্যাভিটির হাত থেকে বাঁচায়।

মন ভালো রাখতে- অতিরিক্ত পরিশ্রম, ক্লান্তি দূর করতে খান আর্ল গ্রে চা। অফিসে কাজের মাঝে ক্লান্তি দূর করতে অনেকেই গ্রিন টি খান। কিন্তু এই গ্রিন টির বদলে যদি আর্ল গ্রে খেতে পারেন তাহলে তা শরীরের অনেক উপকারে আসবে। চটজলদি যেমন ক্লান্তি দূর করবে তেমনই শরীর ও মনকে রিফ্রেশ করবে। আবার নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করতে পারবেন। তাই এই ফ্লেভার চা এবার খাওয়া শুরু করুন। আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন ঠিক কতটা ফ্রেশ থাকতে পারছেন।

ওজন কমায়- নিয়মিত ডায়েট, শরীরচর্চা যাঁরা করেন, তাঁরা যদি এই চা প্রতিদিন খান তাহলে খুব দ্রুত ওজন কমবে। এই চা যেহেতু মেটাবলিক রেট ঠিক রাখে তাই হজম ভালো হয়। এই চায়ে থাকা সাইট্রাস, শরীরে অতিরিক্ত এনার্জি দেয়। ফলে আপনি সারাদিন আরও বেশি কাজ করতে সক্ষম হবেন।

যাদের অল্পেই ঠান্ডা লাগে – অল্পেই অনেকে সর্দি কাশির সমস্যায় ভোগেন। ঠান্ডা লাগা, শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি সমস্যায় ভোগেন। এই রকম মানুষরা যদি প্রতিদিন আর্ল গ্রে চা খান তাহলে উপকার পাবেন। ফ্লু এবং ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করবার জন্য শক্তি যোগায়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *