লাদাখে তৈরি হওয়া উত্তেজনার আঁচ পৌঁছে গেল সুদুর আমেরিকাতে। দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে যুদ্ধের আবহাওয়া তৈরি হয়েছে লাদাখে। দু’পক্ষই সৈন্য সংখ্যা দ্রুত বাড়াচ্ছে । উদ্বিগ্ন যে গোটা বিশ্বই, বুধবার তা স্পষ্ট হয়ে গেল মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের টুইটে। ভারত-চিন সীমান্তে যে সমস্যা তৈরি হয়েছে, তা মেটাতে তিনি আগ্রহী এবং প্রস্তুত।

সম্প্রতি ভারত-চিন নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর পরিস্থিতি উত্তপ্ত।  এই মাসেই লাদাখে এবং পরে উত্তর সিকিমের নাকুলা অঞ্চলে হাতাহাতিতে জড়িয়েছিল ভারত ও চিনের বাহিনী। পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যখন লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর চিন বিপুল সৈন্য সমাবেশ শুরু করে। পরিস্থিতি বুঝে ভারতও পাল্টা সেনা সমাবেশ শুরু করে গালওয়ান উপত্যকায়। তার মাঝেই উপগ্রহ চিত্রে দেখা গিয়েছে যে, তিব্বতের গাড়ি কুনসা’র বিমানঘাঁটিতে সম্প্রসারণের কাজ শুরু করেছে চিন। পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে মঙ্গলবারই সর্বোচ্চ পর্যায়ের সামরিক কর্তাদের ডেকে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী । চীন প্রেসিডেন্ট শি চিনফিং-ও নিজের বাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিইয়েছেন।

আরও পড়ুন – সীমান্ত সংঘাত, দিল্লিতে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক সেনা আধিকারিকদের সাথে

পরিস্থিতির গুরুত্ব বুঝে বিশ্বের বৃহত্তম সামরিক শক্তি আমেরিকাও মধ্যস্থতায় আসতে চাইছে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ দিন টুইট করেছেন ভারত-চিন সীমান্তের পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে। তিনি লিখেছেন, ‘‘আমরা ভারত ও চিন উভয়কেই জানিয়েছি, তাদের সীমান্তে এখন যে সমস্যা চলছে, তার মধ্যস্থতা ও মিমাংসা করতে আমেরিকা ইচ্ছুক ।

ভারত-চীনের মধ্যে সীমান্ত বিতর্ক নতুন ঘটনা নয়। ১৯৬২-র যুদ্ধের পর আবার ২০১৭ সালে ডোকলাম ঘটনার পর থেকে পরিস্থিতি আবার উত্তপ্ত হতে শুরু করেছে। লাদাখের নানা অংশে চীনের এলএসি লঙ্ঘনের চেষ্টার ফলে আবার বড়সড় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে ভারত-চিন সীমান্তে। এই উত্তেজনা এতটাই উদ্বেগের যে, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট পর্যন্ত মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছেন।

আরও পড়ুন – লাদাখে চীনের সন্দেহজনক গতিবিধি, আশঙ্কা কূটনৈতিক মহলে

আমেরিকার মধ্যস্থতার প্রস্তাব এই প্রথম নয়। এর আগেও কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আমেরিকার মধ্যস্থতার প্রস্তাবে দিল্লী বারবার জানিয়েছে, ভারত কোনও তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করবে না। ডোকলামের ঘটনায় ভারত, তখনও কারও মধ্যস্থতার অপেক্ষা করে নি। তবে নয়াদিল্লি এখনও ট্রাম্পের টুইট প্রসঙ্গে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *