বিপর্যস্ত মুম্বই। গত কয়েক দিন ধরে তুমুল বৃষ্টি হচ্ছে শহরে। বুধবার সন্ধ্য়া নাগাদ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১০৭ কিলোমিটার বেগে দমকা হাওয়া বয়ে গিয়েছিল শহরের উপর দিয়ে। আর এই দুইয়ের তাণ্ডবে আরও বেহাল হয়ে পড়ে বাণিজ্যনগরী । বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুৎহীন। বিভিন্ন এলাকায় জলবন্দি মানুষকে উদ্ধারে নামানো হয়েছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী’র (NDRF) দলকে। শহরে দেখা দিয়েছে বন্যার আশঙ্কা।

অতিবর্ষণের জেরে মুম্বই ও তার পার্শবর্তী এলাকার পরিস্থিতি নিয়ে বুধবার মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। পরিস্থিতি মোকাবিলায় রাজ্য সরকারকে সমস্ত ধরনের সহায়তার আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী মোদী।

আপাতত মুম্বইয়ের এই বিপদ কাটার কোনও লক্ষণ নেই বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। বরং বৃহস্পতিবারও নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে তারা। সেইসঙ্গে সকাল ৭টা পর্যন্ত ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যাবে। যে কারণে উদ্বেগ আরও বাড়ছে প্রশাসনের অন্দরে। বেশ কয়েকটি এলাকায় অস্থায়ী ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে।

শহরের সরকারি জেজে হাসপাতালের ভিতরে জল জমে গিয়েছে। একাধিক এলাকায় জল জমে এবং গাছ পড়ে রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। ফলে দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে যান চলাচল। বিদ্যুতের মিটার বক্সে জল ঢুকে যাওয়ায় বহু এলাকার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। ফলে বিস্তীর্ণ এলাকা বিদ্যুৎহীন। এমনকী ঝড়জলের দাপটে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে মুম্বইয়ের লাইফলাইন লোকাল ট্রেন পরিষেবাও। মাঝ পথে আটকে পড়ে দু’টি লোকাল ট্রেন। আরপিএফের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ট্রেনের আটকে পড়া যাত্রীদের উদ্ধার করেন NDRF-এর জওয়ানরা।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *