বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় ঘোষণার জন্য লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতকে আরও এক মাস সময় দিল সুপ্রিম কোর্ট। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই মামলার রায়দান শেষ করতে হবে বলে শনিবার সর্বোচ্চ আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে।

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার অভিযুক্তদের তালিকায় বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলি মনোহর যোশী এবং ঊমা ভারতীর মতো প্রথম সারির বিজেপি নেতানেত্রীর নাম আছে। এর আগে সুপ্রিম কোর্ট দীর্ঘ দিন থেকে বিচারাধীন এই মামলার রায়দানের জন্য ট্রায়াল কোর্টকে ৩১ অগস্ট পর্যন্ত সময় দিয়েছিল।

সেই সময়সীমা বাড়ানোর জন্য সর্বোচ্চ আদালতে আবেদন করেন ট্রায়াল কোর্টের বিচারক এসকে যাদব। যার পরিপ্রেক্ষিতে আরও এক মাস সময় বাড়ান হয়েছে।

এদিন সুপ্রিম কোর্ট তার রায়ে বলেছে, ‘এই মামলার বিচারপর্ব বর্তমানে চূড়ান্ত পর্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে বলে বিশেষ বিচারক সুরেন্দ্র কুমার যাদব তাঁর রিপোর্টে জানিয়েছেন। সেই রিপোর্ট পড়ার পরে রায়দান-সহ সমস্ত বিচারপর্ব শেষ করার জন্য আমরা বিশেষ সিবিআই আদালতকে আরও এক মাস মঞ্জুর করছি এবং ২০২০ সালের ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিচার শেষ করে রায় ঘোষণার নির্দেশ দিচ্ছি।’

বহু আলোচিত এই মামলায় গত ২৪ জুলাই ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশেষ সিবিআই আদালতে নিজের বক্তব্য নথিভুক্ত করেন ৯২ বছর বয়সী আডবাণী। তার আগের দিন মুরলি মনোহর যোশীর বক্তব্য আদালতে নথিভুক্ত হয়।

আডবানিকে আদালত ১০০টির বেশি প্রশ্ন করেছিল। নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেন বর্ষীয়ান এই বিজেপি নেতা। এমনই জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী। একইভাবে আর এক বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা মুরলি মনোহর যোশীও আদালতে বক্তব্য নথিভুক্ত করার সময় নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছিলেন।

এই মামলার রায়ে তাঁর ‘কিছু যায়-আসে না’ মন্তব্য করতে দেখা গিয়েছে অপর অন্যতম অভিযুক্ত বিজেপি নেত্রী ঊমা ভারতীকে। গত ২৫ জুলাই এনডিটিভি-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, ‘বক্তব্য নথিভুক্ত করার জন্য কোর্ট আমাকে ডেকেছিল এবং যা সত্যি তাই আমি আদালতকে বলেছি। আদালত কী রায় দিল তা আমার কাছে কোনও ব্যপার নয়। যদি আমাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হয় নিজেকে ধন্য বলে মনে করব। আমার জন্মভূমি খুশি হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *